জুলাই ২৬, ২০২১ ১ : ১৪ পূর্বাহ্ণ
Breaking News
Home / জাতীয় / রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর হঠাৎ সাক্ষাৎ নিয়ে জাতি উদ্বিগ্ন’

রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর হঠাৎ সাক্ষাৎ নিয়ে জাতি উদ্বিগ্ন’

আলোকিত ডেক্স:  বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেলকে নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হঠাৎ সাক্ষাতের ঘটনায় সমগ্র জাতি উদ্বিগ্ন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব ব্যারিস্টার আব্দুস সালাম তালুকদারের ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ব্যারিস্টার আব্দুস সালাম তালুকদার স্মৃতি সংসদ পরিষদ এই অনুষ্ঠানের আয়োজক।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সুপ্রিমকোর্ট একটি রায় দিয়েছেন, তার বিরুদ্ধে গিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন প্রধানমন্ত্রী, এটি নজিরবিহীন। তাদের এই সাক্ষাৎ নিঃসন্দেহে সমগ্র জাতিকে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে।’

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রী-এমপি থেকে আওয়ামী লীগের পাতি নেতারা প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে কুৎসা রটিয়ে যাচ্ছেন। তারা সুপ্রিমকোর্ট সম্পর্কে যেসব মন্তব্য করছেন, তা কোনো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় চলতে পারে না। বিএনপি এসবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আপিল বিভাগ সর্বসম্মতভাবে ষোড়শ সংশোধনী বেআইনি বলে রায় দিয়েছেন। রায়ে কিছু পর্যবেক্ষণ দেওয়া হয়েছে, যেগুলোকে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে বিএনপি এবং দেশের মানুষ। মানুষের জন্য, ন্যায়বিচার, আইনের শাসন ও সংবিধান সমন্বিত রাখার জন্য এই রায় যুগান্তরকারি।’

তিনি বলেন, ‘বিচার বিভাগ নিজেরাই বলছে তারা স্বাধীন নয়। সরকার তাদের নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। এই চেষ্টার সর্বশেষ নজির জনগণ দেখেছে- কীভাবে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী তার আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেলকে নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠক করেছেন।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের কর্মকাণ্ড দেখে মনে হচ্ছে না, এই দেশে রাষ্ট্র বলতে কিছু আছে? সরকার ও বিচার বিভাগ বলতে কিছু আছে কি না, তা নিয়েও আমরা সন্দিহান হয়ে পড়েছি। আতঙ্কিত। এখন তারা অবশিষ্ট গণতন্ত্রটুকুও ধ্বংসের চক্রান্ত শুরু করেছে।’

এ সময় তিনি আব্দুস সালাম তালুকদারের স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘আসুন দেশের এই দুঃসময়ে আমরা জিয়াউর রহমানের আদর্শ ও প্রয়াত ব্যারিস্টার আব্দুস সালাম তালুকদারকে অনুসরণ করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আহ্বানে সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে ক্ষমতাসীনদের বাধ্য করি। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, কেন্দ্রীয় নেতা নিলুফার চৌধুরী মনি, আনোয়ার হোসেইন, শফিউল বারী বাবু প্রমুখ।

Check Also

দুই মাস লন্ডনে অবস্থানের পর আমাগী সপ্তাহে দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া

আলোকিত ডেক্স: চিকিৎসার জন্য প্রায় দুই মাস লন্ডনে অবস্থানের পর আমাগী সপ্তাহে দেশে ফিরছেন বিএনপি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *