অক্টোবর ৩১, ২০২০ ১০ : ১৭ অপরাহ্ণ
Breaking News
Home / Tech / “জীবননগর হাসাদহে রমরমা মাদক ব্যবসা” নিরব প্রশাষনঃ অতিষ্ট সর্ব সাধারন

“জীবননগর হাসাদহে রমরমা মাদক ব্যবসা” নিরব প্রশাষনঃ অতিষ্ট সর্ব সাধারন

নিজস্ব প্রদিবেদক ঃ চুয়াডাঙ্গা জেলা জীবননগর উপজেলা হাসাদাহ বাজারের মাদক ব্যবসায়ীরা এখন বড়ই বেপোরা হয়ে উঠেছে । মাদক ব্যবসায়ীরা এখন হাসাদাহ বাজারের মাধবপুর রোডে ভুমি অফিসের নিকট এবং অপর দিকে জীবননগর থানার শেষ সীমানা জোড়া মাইল নামক স্থান, হাসাদাহ যাত্রী ছাউনি এলাকা ও হাসাদাহ বাজারের অদুরে আখ সেন্টার সহ বাজারের আনাচে কানাচে মাদক ব্যবসায়ীরা হকারী করে তারা ফেনসিডিল, ইয়াবা, গাজার মত ভয়ানক মরন নেশা দ্রব্য বিক্রি করছে। অথচ নাকের ডোগায় স্থানীয় পুলিশ ক্যম্প থাকা সত্বেও কিছু পয়সার লোভে অসাধু কিছু পুলিশ সদস্য অর্থের বিনিময়ে লোক চক্ষুর আড়ালে মাদক ব্যবসায়ীদেরকে সহযোগিতা করছে। যার ফলে স্থানীয় বসবাস কারি সর্ব সাধারনের প্রতিবাদ করার মত ইচ্ছে থাকলেও তা তারা ভয়ে করতে পারছে না। কারন কেউ প্রতিবাদ করতে চাইলে তাদেরকে আবার ভয় দেখানো হচ্ছে যে, কথা বলেল মাদক দ্রব্য দিয়ে পুলিশ ধরিয়ে দেওয়া হবে। উক্ত বিষয়টি নিয়ে এলাকার সর্ব সাধারনের সাথে কথা বলেল তারা দৈনিক সময়ের সমীকরণকে জানান যে, সম্প্রতি শুনেছি চুয়াডাঙ্গা থেকে ডিবি পরিচয়ে কিছু অফিসার এসে মাদক ব্যবসায়ীদেরকে উঠিয়ে নিয়ে যায়, আবার মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাদেরকে ছেড়েও দেয় এ যেন নিরব অর্থ বানিজ্য। তাই তো কথায় বলে রক্ষক যখন ভক্ষক। এই হাসাদাহে মাদক সেবন করার জন্য প্রতিদিন দুর দুরান্ত থেকে বিভিন্ন ধরনের লোকের আনা গুনা দেখা যায়। যার কারনে এই এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই এর মত বড় ধরনের র্দুঘটঁনা অহরহ ঘটে। আর এই মাদক সেবন কারীরা মাদক সেবন করার পরে রাস্তা ঘাটে মাতলামি শুরু করে এই এলাকার পরিবেশটা নষ্ট করছে। মাদক বিক্রেতারা হকারি করে মাদক বিক্রি করে বেড়াই সকাল হলেই জীবননগর কালীগঞ্জ রোডে মাল খরদের মিলন মেলার সৃষ্টি হয়। যার ফলে এলাকার উঠতি বয়সের স্কুল, কলেজ পড়–য়া ছেলেরা মাদক সেবনের দিকে আসক্ত হয়ে সমাজটাকে নষ্ট করে ফেলছে। ইতি পুর্বে পত্র পত্রিকায় এই বিষয়ে অনেক বার সংবাদ প্রকাশিত হলেও প্রাশষনের পক্ষ থেকে কোন কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহন না করায় কোন সুফল পাননি এলাকাবাসি। তাই তো এলাকার সর্ব সাধারন ও অভিভাবক মহলের দাবি এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদেরকে চিহ্নিত করে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করা এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইন গত ব্যবস্থ্য গ্রহন করার জন্য পুলিশ সুপার সহ উর্ধতন সকল প্রসাশনিক কর্মকর্তার স্বদয় সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন। এলাকার সুধি মহলের দাবি প্রশাষন যদি একটু সু-দৃষ্টি দিতো তা হলে মাদক ব্যবসায়ীরা এত তৎপর হতনা। তাই আর যেন কোন মায়ের সন্তান মাদকের নেষায় আসক্ত হয়ে তাদের ভবিষৎ জীবনটা ধংসের দিকে ঠেলে না দেয়। উক্ত বিষয়টি সর্ম্পকে হাসাদাহ পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এর সাথে কথা বলেল তিনি বলেন যে, কারা মাদক ব্যবসা করে আমি জানিনা, আমার জানা নেই। কেউ আমার কাছে আজ পর্যন্ত মাদক ব্যবসা নিয়ে কোন অভিযোগ করেনি এবং মাদক ব্যবসায়ীর তথ্য দেয়নি।

Check Also

জীবননগর -কালীগঞ্জ মহাসড়কের বৈদ্যনাথপুরে ঘাতক ট্রাক্টর কেড়ে স্কুল ছাত্রীর প্রাণ

আল-আমিন হাসাদাহ থেকেঃ শুকতারার আর যাওয়া হলো না অসুস্থ নানাকে দেখতে। নানাকে একটিবার শেষ দেখার সুযোগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *