জুন ১৫, ২০২১ ২ : ৫২ পূর্বাহ্ণ
Breaking News
Home / Tech / কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকলেও দালাল ও কোম্পানির রি-প্রেজেন্টিভদের দৌরাত্বে অতিষ্ঠ রোগীরা

কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকলেও দালাল ও কোম্পানির রি-প্রেজেন্টিভদের দৌরাত্বে অতিষ্ঠ রোগীরা

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি: ঝিনাইদাহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেস্কে দালাল আর রি-প্রেজেন্টিভদের দৌরাত্বের কারনে রোগীরা রিতিমত অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে হাসপাতালে আসা রোগীদের হাতে কাগজ দেখলেই বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দালালদের অপতৎপরতা শুরু হয়ে যায়। সে সময় রোগী ও তাদেরসাথে থাকা লোকজন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। সাধারন মানুষ এমন পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে উর্দ্ধতম কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছে। কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ শয্যা থেকে ৫০শয্যায় উন্নতি করন হয়েছে।হাসপাতালের অবকাঠামো গত উন্নয়ন হলেও অনেক সমস্যার ভিড়ে যোগ হয়েছে ক্লিনিকের দালাল ও ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধীদের দৌরাত্ব সুর্যদয়ের সাথে সাথে শহরের বিভিন্ন ক্লিনিকের নির্ধারিত দালালদের আনাগোনা বাড়তে থাকে তাদেরকে অনেকসময় ডাক্তারের চেম্বারের সামনে গিয়ে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এছাড়া ও হাসপাতালের ডাক্তারগন হাসপাতালের ডিউটি থাকা সত্তেও বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চেম্বারে রোগী দেখছেন এতে হাসপাতালের নিয়ম অবমাননা হচ্ছে এ ব্যাপারে কতৃপক্ষের কোন মাথাব্যাথা নেই। যার কারনে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সাধারন জনগনের। রোগী সাধারনের অভিযোগ হাতে প্রেসক্রিপশন দেখলেই হাসপাতালের ডাক্তারদের সামনেই দালালরা ও কোম্পানির প্রতিনিধীরা টানাটানি শুরু করেদেয়।আবার অনেক চিকিৎসক তাদের পছন্দের মতো ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাঠিয়েদিয়ে কমিশন হাতিয়ে নিচ্ছে।শুধুমাত্র কমিশন বানিজ্যের কারনেই অপ্রয়োজনীয় পরিক্ষা দেয়া হয়ে থাকে এমন অভিযোগ আছে।এলাকাবাসির অভিযোগ হাসপাতালের দালালদের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিভাগে অভিযোগ করেও কোন লাভ হয়নি। বরং তাদের নজরে পড়েছে হাসপাতালের কর্মকর্তারা। দালালদের সাথে হাসপাতালের ডাক্তারদের। সখ্যতার কারনে তাদের দৌরাত্ব দিনদিন বাড়ছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একব্যাক্তি জানায়, হাসপাতালে আসলেই দেখি ২-৩ জন দালাল বসে আছে এবং রোগীদের কাছথেকে প্রেসক্রিপশন নিয়ে তাদেরকে ভুলভাল বুঝিয়ে তাদের নির্ধারিত ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যাচ্ছে।এসব দালালদের কারনে হাসপাতালে রোগীদের আসা দায় হয়ে পড়েছে।দালালদের উৎপাত যদি বন্ধ করা না যায় তাহলে রোগীরা সাধারন সেবা থেকে বঞ্চিত ও প্রতারিত হতেই থাকবে।এ সমস্যা থেকে সাধারন জনগনের মুক্তি দেয়া হোক এ জন্য কতৃিপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছে এলাকাবাসী।

Check Also

কোটচাঁদপুরে হাত ধোয়া দিবস ২০১৭ অনুষ্ঠিত

কোটচাঁদপুর(ঝিনাইদহ)থেকে সুমনঃ আমার হাতেই আমার সু স্বাস্থ্য ২৬ অক্টোবর বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস ২০১৭ উপলক্ষ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *